যেন ‘প্রণয়শালা’ রেস্টুরেন্ট নয়

খাবারের জন্য রেস্টুরেন্ট। সেই রেস্টুরেন্টে ঢুকতেই সামনে পড়বে ভয়ঙ্কর ছবি। ভেতরে কবুতরের খোপের মত বসার জায়গা। আমাদের দেশীয় ঐতিহ্য ভুলে বিজাতীয় অসামাজিক কার্যকলাপ হচ্ছে এখানে! পরিবেশ দেখলে মনে হবে এটি রেস্টুরেন্ট নয় যেন ‘প্রণয়শালা’। রেস্টুরেন্টের বাইরে জাকজমক আর চাকচিক্য দেখা গেলেও রান্না ঘরে উল্টোচিত্র। নকল ভেজাল খাদ্র সামগ্রী দিয়ে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে চলছে রান্না। এমনই এক প্রতিষ্ঠান রাজধানীর ধানমন্ডির ১৫ নাম্বারের কে বি স্কয়ারে ডেভিলস ফ্যাক্টরি (শয়তানের কারখানা) ও ‘ডাবল ডেকার’ এ বৃহস্পতিবার অভিযান চালায় জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর। অভিযান সার্বিক তদারকি করেন ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক (উপ-সচিব) মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার এবং প্রধান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক শাহীন আরা মমতাজ। অভিযান পরিচালনা করেন অধিদফতরের ঢাকা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. আব্দুল জব্বার মণ্ডল। এসময় সার্বিক সহযোগিতা করে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ান (এপিবিএন)-১ ও ১১ এর সদস্যরা। উপ-পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, রেস্টুরেন্ট খাবার বিক্রি করছে। কিন্তু ভেতরে ঢুকলেই মনে হবে এটি একটি ভিন্ন জগৎ। সামনে পড়বে ভয়ঙ্কর ছবি। ভেতরে কবুতরের খোপের মত বসার জায়গা। তারা দেশীয় ঐতিহ্য ভুলে বিজাতীয় অসামাজিক কার্যকলাপের উৎসাহ দিচ্ছে। পরিবেশ দেখলে মনে হবে রেস্টুরেন্ট নয় যেন ‘প্রণয়শালা’। অর্থাৎ খাবার বিক্রির নামে তারা উঠতি বয়সের ছেলে-মেয়েদের অসামাজিক কার্যকলাপের সুযোগ করে দিচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, তারা দেশি বিভিন্ন পণ্যকে বিদেশি বলে অতিরিক্ত দামে বিক্রি করছে। তাদের রেস্টুরেন্টগুলো বাইরে জাকজমক আর চাকচিক্য দেখা গেলেও রান্না ঘরে উল্টোচিত্র। নকল ভেজাল খাদ্র সামগ্রী দিয়ে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে রান্না করছে। আর এসব অভিযোগে ডেভিলস ফ্যাক্টরি ও ডাবল ডেকারকে এক লাখ টাকা করে মোট দুই লাখ টাকা জরিমানা করে অধিদফতার। তিনি বলেন, অধিদফতরের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানগুলোকে সতর্ক করা হয়েছে। তাদের সংশোধন হতে বলা হয়েছে। নির্দেশনা অমান্য করলে তাদের বিরেুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আইন অনুযায়ী জেল, জরিমানা করা হবে। প্রয়োজনে প্রতিষ্ঠান সিলগালা করা হবে।

তিনি আরোও বলেন, অভিযান চলাকালে খবর পেয়ে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠান তালা লাগিয়ে পালিয়ে যায়। আমরা তাদের নাম ঠিকানা নিয়ে এসেছি। ঈদের পর ওই সব প্রতিষ্ঠানকে অধিদফতরে ডাকা হবে বলে জানান তিনি।
মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, ডেভিলস ফ্যাক্টরি ও ডাবল ডেকারসহ আরো ৪টি খাবার বিক্রির প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়। এর মধ্যে টেক আউটকে ৫০ হাজার টাকা, ইউনাইটেড কাটারী অ্যান্ড কাবাব হাউজকে এক লাখ টাকা, ওজোন রেস্টুরেন্টকে ৫০ হাজার টাকা এবং ম্যাট সেফকে ৫০ হাজার টাকাসহ মোট ৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

image_printপ্রিন্ট

শেয়ার

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।